আজ শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০

জমে উঠেছে লালবাজার মাছের মেলা হরেক প্রজাতির মাছের পসরা

 প্রকাশিত: ২০২০-০১-১৪ ১০:৫৪:৫০

উদ্বোধনী দিনেই জমে উঠেছে নগরীর লাল বাজারের মাছের মেলা। মেলাকে ঘিরে সকাল থেকেই বাজার ছিলো ক্রেতা-বিক্রেতার পদভারে মুখরিত। পরিবার পরিজন নিয়ে অনেকেই বিলুপ্তপ্রায় মাছ দেখেছেন, সেলফি তুলেছেন। মেলায় দর্শনার্থীদের উপস্থিতি দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন আয়োজকরা।
পৌষ সংক্রান্তি উপলক্ষে বন্দরবাজার লালবাজার মৎস্য বাজারে তিন দিনব্যাপী এই মেলা গতকাল সোমবার থেকে শুরু হয়েছে।

মেলাকে ঘিরে পুরো বাজারকে সাজানো হয়েছে নতুন সাজে। মাইক লাগানো হয়েছে। ব্যবসায়ীদের মধ্যেও অন্যরকম ফুরফুরে ভাব। প্রতিবছরের মতো এবারো বাজারে উঠেছে নানা প্রজাতির মাছ। দেশীয় প্রজাতির মাছগুলো দেখতেও এক ধরণের আনন্দ অনুভূত হচ্ছে। অনেকেই কিনছেন, ঘুরে ঘুরে দেখছেন।

যে দোকানে বড় মাছ সেখানে জটলা বেশী। অনেকেই সেলফি তুলছেন। বাজারে সবচেয়ে বড় পঙ্খিরাজ মাছ তুলেছেন এমরান আহমদ। সেই পঙ্খিরাজ আজ মঙ্গলবার কেটে কেজি দরে বিক্রি করা হবে। প্রতিকেজি বিক্রি হবে দুই হাজার টাকা। পঙ্খিরাজ ছাড়াও আরো কয়েকটি বড় মাছ আজ একইভাবে কেটে বিক্রি করার কথা জানিয়েছেন বাজারের সাধারণ সম্পাদক গুলজার আহমদ জগলু।


সন্ধ্যায় বাজারে গিয়ে দেখা যায়, মাছ মেলাকে ঘিরে মানুষের জটলা। ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে দর-কষাকষি চলছে। তবে যত না ক্রেতা, তার চেয়ে বেশি মানুষ ভিড় করছেন মাছ দেখার জন্য। বাজারে উঠেছে সামুদ্রিক মাছ শাপলা পাতা। অনেকেই কৌতুহল নিয়ে এই মাছটি দেখছেন। আকারে অনেকটা শাপলার মতো, তাই হয়তো নাম রাখা হয়েছে শাপলা। আছে বড় আকারের চিতল, রুই, কাতল, বোয়াল, গজার, গ্রাস কার্প, কালি বাউস, কানি পাবদা, কাতলা, মহাশোল, সরপুটি, সিলভার কার্প। আছে হাওর অঞ্চলের নানা প্রজাতির ছোট আকারের মাছ।


তবে অনেক মাছ আছে যেগুলো সবার কিনে খাবার সাধ্যের বাইরে। মেলায় সেই মাছগুলো কেটে কেজি ধরে বিক্রি করারও ব্যবস্থা আছে। বাজারের সভাপতি এনায়েত হোসেন জানান, অধিকাংশ মাছই সিলেট জেলার বড় হাওড় বাওড় এবং বিল থেকে এসেছে।যগুলো সবসময় বাজারে দেখা যায়না।
বিভিন্ন প্রজাতির মাছের মধ্যে বাজারে আছে ইলিশ মাছ।মলাকে ঘিরে অধিকাংশ দোকানেই বড় আকারের ইলিশ মাছ তোলা হয়েছে।
অনেকের মতো মৎস্য মেলা দেখতে বাজারে এসেছেন তিনজন তরুণ তারেক, ফয়সল ও মাহফুজ। কথা হলে তারা জানান, মেলায় অনেক মাছ উঠেছে যেগুলো সবসময় আমরা বাজারে দেখি না। একইভাবে অনেক মাছ দেখেছি, কিন্তু নাম জানি না। তাই এ ধরণের মেলা অনেক তাৎপর্য বহন করে।


গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে মেলার উদ্বোধন করেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক ময়র ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। উপস্থিত ছিলেন, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ’র সভাপতি আবু তাহের মোহাম্মদ শোয়েব, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর জাকির হোসেন। লালবাজার মৎস্য ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি এনায়েত হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক গোলজার আহমদ জগলুর পরিচালনায়

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, সিলেট রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান জামিল, সিটির প্যানেল মেয়র-১ তৌফিক বক্স লিপন, সিটি কাউন্সিলর মোস্তাক আহমদ, সিটি কাউন্সিলর সাইফুল আমিন বাকের, ফিফা সনদপ্রাপ্ত রেফারী ফয়জুল ইসলাম আরিজ, লালবাজার মৎস্য ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার, লালবাজার দোকান মালিক সমিতির সাধারণ

সম্পাদক শাহ আলম, জহির উদ্দিন কুনু, আব্দুল মুক্তাদির, জাহিদ মাহমদ খান, নজরুল ইসলাম আফাজ, ছালাউদ্দিন, মামনুর রশিদ মামুন, হীরা আলম, মোস্তাক আহমদ, জুম্মান আহমদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, মাছের মেলা এ অঞ্চলের ঐতিহ্যের ধারক। মেলায় বেচাকেনা যতই হোক, এ মেলা আমাদের ঐতিহ্য আর সংস্কৃতিকে বহন করছে।

আপনার মন্তব্য