আজ শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

লাখো ভক্তবৃন্দকে কাদিয়ে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাধক পীরে ক্বামেল সৈয়দ হাসান ইমাম হোসাইনি চিশতী ওরফে সৈয়দ আওলিয়া মিয়া।

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৫-০৬ ১৭:৫২:৪৭

লাখো ভক্তবৃন্দকে কাদিয়ে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ঐতিহাসিক সুলতানশী হাবেলীর সু-শিক্ষিত পন্ডিত নামে খ্যাত বিশিষ্ট লেখক, ইসলামী চিন্তাবিদ ও আধ্যাত্মিক সাধক পীরে ক্বামেল সৈয়দ হাসান ইমাম হোসাইনি চিশতী ওরফে সৈয়দ আওলিয়া মিয়া। 

গতকাল রবিববার সকাল ১১টায় সুলতানশী মাঠ প্রাঙ্গনে মরহুমের জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় এলাকাবাসীসহ জেলার বিভিন্ন স্থানকে আসা হাজার হাজার মুসল্লিয়ানদের ঢল নামে।
 জানাযার নামাজে ইমামতি করেন মরহুমের ভাই সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া।
 
পরে মোনাজাত শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমের লাশ দাফন করা হয়। উল্লেখ্য, গত শনিবার সকাল ৬ টা ১০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে বার্ধক্যজনক কারণে ইন্তেকাল করেন সৈয়দ হাসান ইমাম হোসাইনী চিশতী ওরফে সৈয়দ আউলিয়া মিয়া। তার মৃত্যর সংবাদ শুনে সুলতানশী হাবিলীসহ ভক্তমহলে শোকের ছায়া নেমে আসে।

 অভিভাবক শূন্য হয়ে পড়ে সুলতানশী হাবিলী। মরহুমের পারিবারিক সূত্র জানায়, ১৩৪৩ বাংলা সনের ২৩ শে অগ্রাহয়ণ জন্মগ্রহন করেন সৈয়দ হাসান ইমাম হোসাইনী চিশতী ওরফে সৈয়দ আউলিয়া মিয়া। তাঁর পিতা মরহুম সৈয়দ গোলাম মোস্তফা হোসাইনী চিশতি একজন ইংরেজী, আরবী, উর্দু ও ফারসী ভাষায় উচ্চ শিক্ষিত আলেম ছিলেন।

 সৈয়দ হাসান ইমাম হোসাইনী চিশতি ১৯৫৬ ইং সনে বাংলা, আরবী-ফারসী, উর্দু ও ইংরেজী ভাষায় উচ্চ শিক্ষা লাভ করে পান্ডিত্য অর্জন করেন।

 পিতার রেখে যাওয়া হাজারো কিতাবের একটি লাইব্রেরী প্রাপ্ত হন। ১৯৫৬ ইং সন থেকে জীবনের অন্তিমকাল অবধী আরবী, উর্দু, ফারসী ও ইংরেজী ভাষায় ইসলাম ধর্মীয় জটিল তত্ত্বসমূহের গবেষণার কাজ চালিয়ে গেছেন। বাংলা-ইংরেজী, আরবী-উর্দু ও ফারসী ভাষায় তিনি একজন সুপন্ডিত ছিলেন।

 সৈয়দ হাসান ইমাম হোসাইনি চিশতী অনেক সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন ছাড়াও তিনি বহু গ্রন্থ রচনা করেছেন। তিনি হবিগঞ্জ সাহিত্য পরিষদ-এর সভাপতি ও সিপাহসালার সাইয়্যেদ নাসিরউদ্দিন পরিষদের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

 তিনি নিয়মিত মাসিক মদিনা, মাসিক তরজুমানসহ বিভিন্ন পত্রিকায় নিয়মিত কলাম লেখতেন। তার রচিত গ্রন্থগুলোর মধ্যে দ্বীনহীন রচনাবলী, তরফের ইতিবৃত্ত, মহরম পরিচিতি, শানে পাঞ্জাতন ও ডুব দাও সখা সত্য সিন্ধু জলে উল্লেখযোগ্য।

 এছাড়াও তিনি লিখেছেন তরফের ইতিকথা, শানে পাঞ্জাতন, মহররম পরিচিতি, ইশকে রাছুল, ইসলামের দৃষ্টিতে বায়ত তরিকা ও চিল¬া প্রসঙ্গ, ইসলামের আলো নামাজ প্রসঙ্গ, রচনা- কদমবুচি প্রসঙ্গ, মুআদ্দাত আল কোরবা, আউলিয়া কিরামের ওসীলা ফজিলত ও মর্যাদা।

 তাঁর প্রতিষ্ঠিত মহাকবি সৈয়দ সুলতান সাহিত্য ও গবেষণা পরিষদ থেকে অনেকগুলো স্মারক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে ।

আপনার মন্তব্য