আজ শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

অমিতাভের হাতখরচ ২ রুপি

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-২৮ ১৭:২৪:৫৯

চলছে ‘কৌন বানেগা ক্রোড়পতি’–র ১১তম আসর। ১৯ আগস্ট থেকে শুরু হয়ে একের পর এক এই শো আসছে খবর হয়ে। তা খবর না হয়ে আর উপায় কী। অমিতাভ বচ্চন যেখানে, খবরের অভাব নেই সেখানে!

কাজ, ক্ষমতা, অর্থ, সম্পদ আর প্রতিপত্তিতে বলিউডের শাহেনশাহ হয়েছেন অমিতাভ বচ্চন। কিন্তু তাঁর দিনগুলো এমন ছিল না। সেই সব দিন নিয়ে কথা বলেছেন ‘কৌন বানেগা ক্রোড়পতি’–র গতকাল মঙ্গলবার রাতের পর্বে।

গতকাল ‘কৌন বানেগা ক্রোড়পতি’–র সেটে এসেছিলেন জাবালপুরের নিতিন কুমার। ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা জেতার পর নিতিন জানান, প্রতিদিন তাঁর বাবা ৫০ রুপি করে হাতখরচ দেন।

তা দিয়েই চলতে হয় তাঁকে। এর পরিপ্রেক্ষিতে অমিতাভ বচ্চন ফিরে যান তাঁর ছোটবেলায়। যখন তিনি পাহাড়ের ওপরে একটা বোডিং স্কুলে পড়তেন।

ভালো খাবার খেতে পারতেন না। বাজার ছিল পাহাড় থেকে দূরে। সেই সময় অমিতাভ বচ্চনের বাবা, কবি হরিবংশ রাই বচ্চন, তাঁকে হাতখরচ নিতেন মাত্র দুই রুপি।

তাও পুরো মাস বাবদ। সেই টাকা নিয়ে অমিতাভ বচ্চন বন্ধুর সঙ্গে বাজারে যেতেন পাকোড়া খেতে। আজকের তুলনায় তখন খাবারের দাম অনেক সস্তা ছিল বলেও যোগ করেন বিগ বি।

অনুষ্ঠানে আরও দেখা যায়, নিতিন এবারের আয়োজনে সবচেয়ে কম সময়ে একটা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। প্রশ্ন শোনার ৩ দশমিক ৫ সেকেন্ডের ভেতরে তিনি প্রশ্নের উত্তর দেন। এই পর্বে অমিতাভ বচ্চন টিন্ডার নিয়ে প্রশ্ন করেন। নিতিন ভারতের এই জনপ্রিয় ডেটিং অ্যাপ সম্বন্ধেও সঠিক উত্তর দেয়।

   বাবার সঙ্গে শ্বেতা বচ্চন আর অভিষেক বচ্চনএর আগে ‘কৌন বানেগা ক্রোড়পতি’–র সাম্প্রতিক এক পর্বে অমিতাভ বচ্চন জানান, মৃত্যুর পর তাঁর সম্পত্তির সমান ভাগ পাবেন ছেলে অমিতাভ বচ্চন ও মেয়ে শ্বেতা বচ্চন।

অমিতাভ বচ্চন দীর্ঘদিন জাতিসংঘের নারী ও শিশুবিষয়ক রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেছেন। যুক্ত ছিলেন ‘বেটি বাঁচাও’ আন্দোলনের সঙ্গে।

এর আগেও টুইটারে সম্পত্তির ভাগাভাগি বিষয়ে একই কথা জানিয়েছেন। ২০১৫ সালে ফোর্বস ম্যাগাজিন অনুসারে, অমিতাভ বচ্চনের মোট সম্পত্তির পরিমাণ ২ হাজার ৮৬৬ কোটি রুপির কাছাকাছি। মৃত্যুর পর এই অর্থ সমানভাবে ভাগ হবে ছেলে ও মেয়ের মধ্যে।

অভিষেক বচ্চন ও তাঁর স্ত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনের ঘরে রয়েছে এক সন্তান, আরাধ্য। অন্যদিকে শ্বেতা বচ্চন ও ব্যবসায়ী নিখিল নন্দার ঘর আলো করে রয়েছে দুই সন্তান। মেয়ে নভ্য নাভেলি আর ছেলে অগস্তা।

প্রায়ই অমিতাভ বচ্চন নারী অধিকার নিয়ে বিবৃতি দেন। আরাধ্য আর নভ্যকে উদ্দেশ্য করে এর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখেছিলেন খোলা চিঠি।

‘মানুষের জাজমেন্টকে পাত্তা দিয়ো না কখনো। নিজের জ্ঞান–বুদ্ধি খাটিয়ে নিজেই নিজের সিদ্ধান্ত নাও। কেউ যেন তোমাকে না বোঝায় যে একটা মেয়ের চরিত্র তার স্কার্টের দৈর্ঘ্যের সমান। কে তোমার বন্ধু হবে, এটা যেন অন্য কেউ ঠিক করে না দেয়।

নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করবে। নিজের ইচ্ছায় বাঁচবে। জানি, এটা খুব কঠিন; বিশেষ করে একটা নারীর জন্য। কিন্তু তোমরা হবে সবার চেয়ে আলাদা। তোমরা হবে অন্য সবার আদর্শ।’

নারীদের অবস্থা, অবস্থান ক্রমে বদলাচ্ছে বলেও জানান অমিতাভ বচ্চন। অনেক ছবির সেটেই তিনি ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ নারী দেখেছেন। বিষয়টি অত্যন্ত ইতিবাচক বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 

আপনার মন্তব্য