আজ শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ খবর

সর্বাধিক পঠিত

 তখন বাজে বেলা প্রায় ১২ টা (৪ সেপ্টেম্বর) । সিলেটের উদ্দেশ্যে যাতায়াতের জন্য কুলাউড়া রেল স্টেশনের ১ নং প্লাটফর্মে অসুস্থ আম্মাকে নিয়ে অপেক্ষা করছি পারাবত ট্রেনের। এসময় স্টেশনের মাইকে ঘোষণা আসলো ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পারাবত ট্রেনটি অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে ২ নং প্লাটফর্মে এসে পৌঁছাবে, যাত্রী সাধারণকে ওই প্লাটফর্মে গিয়ে প্রস্তত হওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষারত শতাধিক নারী, শিশু, বৃদ্ধসহ যাত্রীরা দুইটি রেল লাইন পার হয়ে ২ নং প্লাটফর্মে অবস্থান নেন। কিন্তু দীর্ঘ আধা ঘন্টা অপেক্ষা করেও ট্রেনের কোন খবর পাওয়া যাচ্ছিলো না। ১ নং প্লাটফর্মে বসার সুযোগ, বৈদ্যুতিক পাখা থাকায় মানুষ অপেক্ষা করলেও বিরক্ত কিছুটা কম করতো। কিন্তু ২ নং প্লাটফর্মে এই সময়টা

বিস্তারিত খবর

লোকগানের শেষ সম্রাট || শাকুর মজিদ

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৯-০৬ ১৯:১২:৫০

তিনি গানওয়ালা। একদিন লিখেছিলেন, ‘বসন্ত বাতাসে সই গো বসন্ত বাতাসে বন্ধুর বাড়ির ফুলের গন্ধ আমার বাড়ি আসে...’। শাহ আবদুল করিমের গান এখন সবার মুখে মুখে। লোককবি ও মরমী এই শিল্পীর গানের কথা ও সুর আচ্ছন্ন করেছে এ প্রজন্মকেও। ১২ সেপ্টেম্বর তাঁর মৃত্যুদিন। তাঁকে নিয়ে এই লেখা।

সেপ্টেম্বর মাসে বরাম হাওর সব সময়ই উতালপাথাল করে। সিলেট থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দূরে দিরাই বাজারে নেমে ‘ঘুণ্টিওয়ালা’ নাইয়রি নৌকা ভাড়া করে এই বরাম হাওর পার হয়ে গিয়েছিলাম ধল গ্রামে। ২০০৩ সালে। তখন আমার কাছে কিংবদন্তির মতো ছিলেন শাহ আবদুল করিম। আমার সঙ্গে নতুন কেনা ভিডিও ক্যামেরা। হাওর পেরোতে পেরোতে দেখি ঝিলমিল ঝিলমিল করা ছোট ছোট ঢেউ, খানিক দূরে দূরে নানা রঙের পালতোলা নাও।

বিস্তারিত খবর

ঃ সাম্প্রতিক কালে সোশ্যাল মিডিয়ায় মাওলানা গিয়াস উদ্দিন আত তাহেরিকে নিয়ে যে ধরনের ব্যাঙ্গ করা হচ্ছে, তা কেনো? আমার বোধগম্য হচ্ছে না,
তাহলে কি আপনারা তাহেরিকে ফলো করে নিজের যশ ছড়াতে চাচ্ছেন?এতে কিন্তু মাওলানা তাহেরির খ্যাতি বৃদ্ধি পাচ্ছে, আপনাদের কি হচ্ছে? 
জেনে রাখুন, নিন্দুকেরা সমাজে সবসময় ঘৃণিত থাকে।মানুষ মাত্রই ভুল, তাহেরি ও তার ঊর্ধ্বে নয়।   সমালোচনা হবে গঠনমূলক, যেনো তিনি তার ভুল বুঝতে পারে এবং তা থেকে ফিরে আসতে পারে। 
এভাবে অশিক্ষিত, মুর্খ ও অভদ্রের মত সমালোচনা করা সচেতন মানুষের পরিচয় নয়।
সব শেষে তিনি একজন আলেম। 
কিয়ামতের দিন আলেমের বিচার আল্লাহতালা পর্দার আড়ালে করবেন। 
একজন আলেমকে নিয়ে ঠাট্টা বিদ্রোপ করা মুসলমান

বিস্তারিত খবর

এক সময় খাবার জোটাতে বাবার সঙ্গে ভিক্ষা করে দিন কাটিয়েছেন রেনুকা আরাধ্য। অথচ আজ তার ৩৮ কোটি রুপির ব্যবসা। প্রায় ৮০০ গাড়ির মালিক তিনি। ভারতের হায়দ্রাবাদ ও চেন্নাইয়ের ট্যাক্সি পরিষেবা বললে সবার প্রথমে তার সংস্থার কথাই সবাই বলে উঠবেন। উন্নতির এই জার্নিটায় আরাধ্যর মূলমন্ত্র, বড় স্বপ্ন দেখুন, ঝুঁকি নিন। জীবনের সব পথেই সৎ থাকুন। জানা গেছে, বেঙ্গালুরুর আনেকাল তালুকের মাঝে একটা ছোট গ্রাম গোপাসান্দ্রা। এই গ্রামেই জন্ম রেনুকার। বাবা পুরোহিত ছিলেন। কিন্তু রোজ কাজ পেতেন না। পাঁচ জনের সংসারে খাবার জোটাতে বাবার সঙ্গে ভিক্ষাও করেছেন তিনি। ভিক্ষুক থেকে সফল ব্যবসায়ী হয়ে ওঠার জার্নিটা কিন্তু সহজ ছিল না আরাধ্যর। তিন ভাইবোনের মধ্যে সবচেয়ে ছোট আরাধ্য।

বিস্তারিত খবর

মুসলিম জীবনে হিজরি সালের গুরুত্ব

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-৩১ ১৮:৪১:৫৪

হিজরি সাল ১৪৪০ বিদায় নিয়ে আসছে ১৪৪১ সাল। ইসলামের বিভিন্ন বিধিবিধান হিজরি সাল তথা আরবি তারিখ ও চান্দ্রমাসের সঙ্গে সম্পর্কিত। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান, আনন্দ-উৎসবসহ সব ক্ষেত্রেই মুসলিম উম্মাহ হিজরি সালের ওপর নির্ভরশীল। যেসব ঐতিহাসিক উপাদান মুসলিম উম্মাহকে উজ্জীবিত করে, তার মধ্যে হিজরি সাল অন্যতম। বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর সভ্যতা-সংস্কৃতিতে ও মুসলিম জীবনে হিজরি সালের গুরুত্ব অপরিসীম। হিজরি সালের সঙ্গে মুসলিম উম্মাহর তাহজিব-তামাদ্দুনিক ঐতিহ্য সম্পৃক্ত।  মানবজীবন সময়ের সমষ্টি। সময়কে মানুষের প্রয়োজনে ব্যবহারোপযোগী করে আল্লাহ তাআলা প্রাকৃতিকভাবে বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত করেছেন। যেমন দিন, রাত, মাস, বছর ইত্যাদি। আল্লাহ তাআলা এরশাদ করেন, ‘নিশ্চয়ই

বিস্তারিত খবর

দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির উপায়

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-২৮ ১৭:৪৯:০৯

এমন মানুষ পাওয়া খুবই কঠিন, যার কোনো দুশ্চিন্তা নেই। তবে, অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা এতই ভয়াবহ যে, এটি মানুষের উচ্চ রক্তচাপ তৈরি থেকে শুরু করে স্ট্রোকের মতো জীবনসংহারী ঘটনার অন্যতম কারণ হয়ে উঠতে পারে। দুশ্চিন্তাগ্রস্ত মানুষকে দুশ্চিন্তা করতে করতে  শয্যাশায়ী হয়ে হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে যেতে পর্যন্ত দেখেছি আমি। তাই, ২০১৬ সালে দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির উপায় নিয়ে আমি শিকাগো পাবলিক লাইব্রেরিতে ও ২০১৭ সালে লারগো পাবলিক লাইব্রেরিতে কিছু বই পড়ি। আমার পড়া ৫-৬টি বইয়ের মধ্যে যেটি আমার সবচেয়ে ভালো লাগে, তা হলো ডেল কার্নেগির ‘হাও টু স্টপ ওরিইং অ্যান্ড স্টার্ট লিভিং (How to stop worrying and start living)। অন্যান্য বইয়ে যা বলা হয়েছে তার সব উপায়ই আছে ডেল কার্নেগির এই বইটিতে। তাই,

বিস্তারিত খবর

মাল্টিমিডিয়া সাংবাদিকতা সমসাময়িক সাংবাদিকতার  যা ইন্টারনেটের মাধ্যমে দুই বা ততোধিক মিডিয়া ব্যবহার করে সংবাদ বিষয়বস্তু বিতরণ করে, বা একাধিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে সংবাদ প্রতিবেদন প্রচার করে।

মার্ক ডিউজের মতে ”মাল্টিমিডিয়া সাংবাদিকতা  পাঠ্য, চিত্র, অডিও, ভিডিও এবং অন্যান্য ফর্ম্যাট সহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের উপাদান দ্বারা বর্ধিত নিউজ কাহিনীকে বোঝায়”

অনলাইন গণমাধ্যমে কর্মরত দেশি-বিদেশি সাংবাদিক ও সাংবাদিকতার শিক্ষকরা বলছেন, ‘পাঠক-দর্শকের চাহিদার কারণেই সাংবাদিকতার ধরন বদলে যাচ্ছে। মানুষ এখন একই সঙ্গে পড়তে, দেখতে ও শুনতে চায়। ফলে গণমাধ্যমের বিকল্প কিছু ভাবার সুযোগ নেই। মাল্টিমিডিয়ার এই ব্যবহার আমাদের জন্য ভালো। তবে

বিস্তারিত খবর

  সমসাময়িক বীর চট্রলার আলোচিত তরুন উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী প্রকৌশলী তানভীর শাহরিয়ার রিমন সফলতায় তাঁর সমবয়সী সকলকে পিছনে ফেলে অল্প বয়সেই চট্রগ্রামের শীর্ষ রিয়েল এস্টেট কোম্পানী Ranks FC properties Ltd এর সিঁইও হয়ে তাঁক লাগিয়ে দিয়েছেন অনেককে। চট্রগ্রামের আলোচিত ব্যবসায়ী হলেও তিনি মূলত পূণ্যভূমি সিলেটের সন্তান। জন্ম, স্কুল কলেজ জীবন কেটেছে সিলেটে। এইচএসসি পাশ করে উচ্চ শিক্ষার জন্য চলে যান চট্রগ্রামে, সেখানে ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করলেও গ্রেজুয়েশন সম্পন্ন করার আগেই মাত্র একুশ বছর বয়সে একটি রিয়েল এস্টেট কোম্পানীতে মাত্র ছয় হাজার টাকা বেতনে নির্বাহী মার্কেটিং হিসেবে নিজের প্রফেশনাল ক্যারিয়ার শুরু করেন,

বিস্তারিত খবর

ছেলেদের জ্বালায় ভোগছেন -তসলিমা নাসরিন

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-১৯ ২৩:৪১:১৭

ছেলেদের জ্বালায় জিমে ঢোকা যায় না। এমন মন্তব্য করেছেন নির্বাসিত বাংলাদেশি লেখিকা তসলিমা নাসরিন।সোমবার (১৯ আগস্ট) নিজের ফেসবুকে এক পোস্টে তিনি এ কথা লিখেছেন।তসলিমা নাসরিনের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-ছেলেদের জ্বালায় জিমে ঢোকা যায় না, মেশিনই খালি পাওয়া যায় না। ইয়াং ইয়াং ছেলে, ২২ /২৩ বা বড়জোর ২৪/২৫ বছর বয়স, পাগলের মতো ব্যায়াম করছে, ঘণ্টার পর ঘণ্টা জিমে পড়ে থাকছে। সিক্স প্যাকের

বিস্তারিত খবর

ডাক্তাররাই সত্যিকারের সুপার হিরো

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-১১ ১৭:০৬:২০

আপনারা সবাই নিশ্চয়ই এখন ঈদের প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত। ঈদুল আজহার প্রস্তুতির ধরনটা একটু ভিন্ন। অনেকেই হয়তো এখন গরুর হাটে ব্যস্ত, শেষ মুহূর্তে ভালো দামে একটা গরু কিনতে পারাও অনেক আনন্দের। যারা একটু দাম দিয়ে আগেই গরু কিনে ফেলেছেন, তারা নিশ্চয়ই এখন গরুর পরিচর্যা, লালন-পালনে ব্যস্ত। অনেকেই চাটাই, কাঠের টুকরো, ছুরি-কাচি কেনা নিয়ে ব্যস্ত হয়তো। বা কোরবানির জন্য প্রয়োজনীয় মসলার মার্কেটেও ব্যস্ততা বেড়েছে। ঈদুল আজহায় ঈদুল ফিতরের মতো সুপার মার্কেটে ভিড় কম।

বিস্তারিত খবর

আরাফার দিনে রোজা ও আমলের ফযিলত

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-১১ ০২:০৩:৩৬

হিজরি সনের বারো মাসের চারটি মাস বিশেষ মর্যাদাসম্পন্ন। এই চার মাসের অন্যতম হল জিলহজ মাস। আল্লাহতায়ালা পবিত্র কোরআনে বলেছেন, ‘প্রকৃতপক্ষে আল্লাহর কাছে মাসের সংখ্যা বারোটি, যা আল্লাহর কিতাব অনুযায়ী সেই দিন থেকে চালু আছে, যেদিন আল্লাহতায়ালা আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবী সৃষ্টি করেছিলেন।
 এর মধ্যে চারটি মাস মর্যাদাপূর্ণ। এটিই সুপ্রতিষ্ঠিত বিধান’ (সূরা- তাওবাহ, আয়াত-৩৬)। মাসগুলো হল জিলকদ, জিলহজ, মহররম ও রজব। এসব মাসে যুদ্ধবিগ্রহ, কলহ-বিবাদ

বিস্তারিত খবর

ট্রাম্প ও মোদির মধ্যে কে বেশি এগিয়ে?

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-০৯ ১৮:১৫:১১

বিশ্বসম্প্রদায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে পড়ে আছে। তিনি বিশ্বের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য, সংখ্যালঘুদের জন্য কতটা ভয়ংকর,
 তা নিয়ে পণ্ডিতেরা বিস্তর বলছেন, লিখছেন। ট্রাম্পের বিতর্কিত নানান কর্মকাণ্ড ও কথার তোড়ে অন্য অনেক কিছুই আড়ালে চলে যাচ্ছে।    এই যেমন এখন ট্রাম্পের চেয়েও বিপজ্জনক এক রাজনীতিক আছেন এই বিশ্বে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতান্ত্রিক ও কথিত ধর্মনিরপেক্ষ দেশ ভারতের প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত খবর

 ১৯৭৫ সালের পনেরোই আগষ্ট শহীদদের স্মরণে গত ৩রা আগষ্ট লন্ডনে এক বিরাট শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। সেই শোকসভায় আমন্ত্রিত বিলেতের দু'জন সাংবাদিক জনমত সম্পাদক জনাব নবাব উদ্দিন ও লন্ডন-বাংলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সৈয়দ নাহাস পাশাকে ঢুকতে না দেয়াকে কেন্দ্র করে এক অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।
 ফলে

বিস্তারিত খবর

রত্নগর্ভা এক কিংবদন্তির চিরপ্রস্থান

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-০৭ ১৪:০২:০০

‘সে খেলা ফুরালো, সে সুর মিলালো,নিভিলো কনক আলো ;দিয়ে গেছ মোরে শত পরাজয়ফিরে এসো জয়রথে।’
শতবর্ষী বটবৃক্ষটি আর নেই। শ্রাবণের শান্ত-সৌম-মৌন সন্ধ্যায়, চিরসত্যের হাত ধরে না ফেরার দেশে চলে গেছেন তিনি! চলে গেছেন বকুল-বিছানো

বিস্তারিত খবর

 সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক মন্ত্রী পর্যায়ের বৈশ্বিক সম্মেলন। সারা বিশ্বের ১০৬টি দেশের প্রতিনিধি ও ৪০টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা অংশগ্রহণ করেন এ সম্মেলনে। আমাদের এবারের সফরের উদ্দেশ্য ছিল সেই সম্মেলনে যোগদান এবং ধর্মীয় স্বাধীনতা ও সম্প্রীতি রক্ষায় বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্ববাসীর কাছে স্পষ্ট করে তুলে ধরা।
বাংলাদেশ

বিস্তারিত খবর

নিকটতম প্রতিবেশী, ঘনিষ্ঠতম ঘাতক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-০২ ২১:২৬:২৪

আমাদের ঘরবাড়ি তাদের ঘরবাড়ি। আমাদের রাজধানী তাদের উপনিবেশ। আমাদের রক্ত তাদের খাদ্য, আমাদের জীবন তাদের শিকার। শহর বড় হচ্ছে, বাড়ছে তাদেরও আবাসন। উন্নয়নের গতি আর তাদের বংশবৃদ্ধির গতি রেলের দুটি লাইনের মতো বহে সমান্তরাল। তারাই আমাদের নিকটতম প্রতিবেশী, ঘনিষ্ঠতম ঘাতক। তারা মশা, আমাদের সহচর।কিন্তু মশা প্রজাতির জনক কে? অপরিকল্পিত নগরায়ণের নায়ক যারা, তারাই তাদের পিতা। ডেঙ্গু মহামারির জন্য দায়ী মশা হলেও এডিস মশার জন্য দায়ী অপরিকল্পিত ও অমানবিক নগরায়ণ।

বিস্তারিত খবর

এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স একটি ভয়াবহ ব্যাপার! বিষয়টা এমন না যে, দুধ নিয়ে ষড়যন্ত্রে প্রতিবাদ করছি বলে আমরা চাই, সবার এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স হয়ে যাক। যদি এমন হয়ে যায় তবে সাধারণ সর্দি-কাশিতেও মানুষ মারা যেতে পারে, কোনো ঔষধ ই কাজে লাগবে না। এখন, আমাদের আগে জানতে হবে কীভাবে এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স হয়?
সবচেয়ে প্রধান যে কারণ সেটা হচ্ছে- আমরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিজেরাই নিজের ক্ষেত্রে ডাক্তার হয়ে যাই। ইচ্ছেমত এন্টিবায়োটিক সেবন করি। আর

বিস্তারিত খবর

উচ্চপ্রবৃদ্ধি: কেতাবে আছে গোয়ালে কই?

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-২৯ ২২:৫৫:০৬

উন্নয়ন মাপার একটা নিক্তি হলো জাতীয় আয়। আর জাতীয় আয় বাড়ছে কি না, তা দেখারও কিছু হিসাব–নিকাশ আছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের দেওয়া তথ্যের শতভাগ না হোক, সন্তোষজনক মাত্রায় বিশ্বাসযোগ্যতা আছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠার কারণ রয়েছে। তা সত্ত্বেও, সরকারি ডেটার বিশ্লেষণেও অনেক অঙ্ক মেলে না। একদিকে আমরা আত্মবিশ্বাস আর গর্বের সঙ্গে উন্নয়নের ফিরিস্তি দিচ্ছি, অন্যদিকে সক্ষমতার খাতগুলোয় ভাটার টান। একে একে দেখা যাক সেই খাতগুলোর বাস্তবতা।জাতীয়

বিস্তারিত খবর

৭ কলেজের অধিভুক্তি কেন অবৈধ

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-২৯ ১৫:৩৫:১৮

দেশের নানা অঘটনের মধ্যে আমাদের সবার চোখের সামনে সাত কলেজ আন্দোলনে আরও একজন ছাত্রের চোখের কর্নিয়া নষ্ট হওয়ার খবর জানা গেছে। এই আন্দোলনে এ পর্যন্ত দুজন ছাত্রের চোখের ক্ষতি হলো। এ ছাড়া এই আন্দোলনকে কেন্দ্র করে যৌন নিগ্রহ, উপাচার্য আক্রান্ত, প্রক্টর ঘেরাও, মিছিল, বিক্ষোভ, ফটকে তালা, ছাত্রলীগের হামলার মতো ঘটনা ঘটেছিল এবং ঘটছে। এর কোনোটিই গুজব নয়, বাস্তবতা। ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি ওই সিদ্ধান্ত কার্যকর করার পরে সংশ্লিষ্টদের তরফে যে দিকটি প্রায় একেবারেই অনালোচিত থেকেছে, সেটি হলো আইনগত দিক। সে কথায় পরে আসছি।

বিস্তারিত খবর

লভ্যাংশের লোভ দেখানোর কৌশল কাজে দেয়নি

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-২৪ ১৯:০৯:৪৬

বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করার আগে অতীতের দুটি শেয়ার মার্কেট বিপর্যয়ের কথা বলতে হয়। ১৯৯২ সালে ’৯২-৯৩ বাজেটে অনাবাসিকদের শেয়ারবাজারে অংশগ্রহণের ঘোষণা দেওয়া হয়। তখন অর্থমন্ত্রী ছিলেন সাইফুর রহমান। এ ঘোষণার পর বিনিয়োগকারীরা বলতে গেলে শেয়ার মার্কেটে হুমড়ি খেয়ে পড়লেন। বিশেষ করে আইপিওতে। কিছুদিনের মধ্যে ধারণা দেওয়া হলো যে বাংলাদেশের টাকা হংকংয়ে গিয়ে ডলারে রূপান্তরিত হয়ে ফের বিনিয়োগ হিসেবে বাংলাদেশে আসবে। তৎকালীন অর্থমন্ত্রী বিষয়টি অনুধাবন করে উদ্যোক্তাদের শেয়ার হোল্ডিংয়ের ওপর লকইন আরোপ করলেন।

বিস্তারিত খবর

প্লিজ আত্নহত্যা করবেন না

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-২৩ ২২:৫৫:৩০

খবরের কাগজে আত্নহত্যার মিছিল দেখি।  আতকে  উঠি ভয়ে। অজানা এক ভয়! ।ভয় নেই আমি আছি নির্ভিক আগামীর যুদ্ধে । পৃথিবীতে এরকম অনেক খবর আছে ,একদিন যে আত্নহত্যা করতে চেয়েছিল,সেই চমকে দিয়েছিল পৃথিবীকে। আমরা সে চমক দেখতে চাই । 
নেলসন মেন্ডেলার ভাষায় যদি বলি" আত্নহত্যা কে না বলি" । গেল বছর আমরা ৫৯ তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে সোনাজয়ী আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরীর হাসোজ্জ্বল চেহারা দেখেছি। আর এ বছর  জিপিএ ৫ বা গোল্ডেন প্রাপ্ত ভাই-বোনদের উজ্জ্বল

বিস্তারিত খবর

গুনতিতে মোরা বাড়িয়া চলেছি গরু ছাগলের মত!

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-২২ ২১:৩৬:১২

একের পর এক ভয়ঙ্কর সব সংবাদ বাংলাদেশে। সাধারণ একজন মানুষ হিসেবে অস্থির লাগে, বিক্ষিপ্ত মনে হয়। কিছু লিখতেও ভয় হয়। গত ছয় মাসে প্রায় ছয় শতের মতো ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে দেশে। আরও কয়েকশ’ হয়তো বা প্রকাশ্যে আসেনি সামাজ ও লোকলজ্জার ভয়ে।কতটা অমানবিক হলে একটি দেশের সাধারণ মানুষ তথাকথিত ক্রসফায়ারের নামে মেরে ফেলাকে সমর্থন করে। বিচার ব্যবস্থার প্রতি কতটা অনাস্থা থাকলে সেটি হতে পারে। ধর্ম, রাষ্ট্র, সমাজ কেউই নিরাপত্তা দিতে পারছে না ধর্ষণ থেকে। ২ মাসের শিশু থেকে শতবর্ষী নারী কেউই রক্ষা পাচ্ছেন না।বাংলাদেশে ধর্ষণ এখন

বিস্তারিত খবর

ড. এ কে আবদুল মোমেন :: বাংলাদেশের লক্ষ্য এখন ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধশালী দেশে পরিণত হওয়া। এসব লক্ষ্য পূরণে নেওয়া হয়েছে বহুমুখী উন্নয়ন প্রকল্প। চলতি অর্থবছরের জুন পর্যন্ত সারাদেশে বাস্তবায়িত হচ্ছে ১ হাজার ৯৭৮টি প্রকল্প। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প রয়েছে ১ হাজার ৬৮২টি। বলা চলে, বহুমুখী এসব প্রকল্পের সুফল পাচ্ছে বাংলাদেশ।
গত দুই দশকের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও সামাজিক উন্নয়নের যে কোনো সূচকের বিচারে

বিস্তারিত খবর

বড় রাস্তার মাঝখানে ঘেরা জায়গা, সেখানে আকাশছোঁয়া যন্ত্রপাতি। ঢাকা শহরের অনেক জায়গার এটি একটি পরিচিত দৃশ্য। বলছি মেট্রোরেলের নির্মাণকাজের কথা। যদি সেই নির্মাণাধীন এলাকার আশপাশে পদচারী–সেতু থাকে, তাহলে তো কথাই নেই। চলার পথে প্রায়ই দেখা যায়, পথচলতি মানুষ দাঁড়িয়ে দেখছে নির্মাণকাজ। তা দেখবে নাই-বা কেন? এমন কাজ তো এ দেশে আগে হয়নি।

বিস্তারিত খবর

মুরসি এবং রাজনৈতিক ইসলামের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৬ ১৫:২৯:৩৩

জেলখানায় মুরসির মৃত্যুর ঘটনা পাশ্চাত্যকে নাড়া দেয়নি। দেওয়ার কথাও তো ছিল না, বরং মুরসির আমলের ময়নাতদন্তের প্রতিযোগিতায় নেমে পড়ে তাদের গণমাধ্যম। যারা ‘মুসলিম’ নাম ধারণ করে গণতান্ত্রিক দুনিয়ার রাজনৈতিক ময়দানে ক্ষমতার প্রতিযোগিতায় ভাগ নিতে চায়, তাদের এক নিখাদ বার্তা পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টায় আপাতত পাশ্চাত্য সফল। তুরস্কের ‘সুলতান’ এরদোয়ান ও কাতারের আমির শেখ তামিম ছাড়া মুরসির সাফল্য কামনার মতো কেউ ছিলেন না আরব বিশ্বে। এই মতভিন্নতা শুধুই ধর্মীয় নয়, বরং

বিস্তারিত খবর

যেভাবে নিহত হন ইন্দিরা গান্ধী

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৪ ০৩:১৭:৫৫

দুইবারের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। পণ্ডিত জওহরলাল নেহরুর কন্যা ইন্দিরা গান্ধী প্রথমে ১৯৬৬-র জানুয়ারি থেকে ১৯৭৭-এর মার্চ পর্যন্ত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। পরবর্তীতে ১৯৮০ সালের ১৪ জানুয়ারি আবার প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন হন।
১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী তারই দুই দেহরক্ষীর গুলিতে প্রাণ হারান।

বিস্তারিত খবর

 বত্রিশটি ধ্বনির বর্ণমালা নাগরী লিপি। অসমিয়া ভাষার সাথে আরবি-ফার্সির মিশ্রনে ব্রাহ্মণ্য লিপির বিপরীতে জন্ম নিয়েছিলো নাগরী লিপি। ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ যুগান্তরের স্মৃতিচিহ্ন হয়ে নাগরী লিপিতে লেখা বেশ কিছু বই আজো টিকে আছে। আজকের সিলেট জেলা নাগরী লিপির জন্মভূমি। সহজে এই লিপির ভাষাকে বুঝাতে আমরা বলি ‘সিলেটি ভাষা’। হ্যাঁ, মহাপ্রাণ ধ্বনির আধিক্য আর ব্যতিক্রমি সুরের ঝংকার তোলা সিলেটি ভাষা উজ্জ্বল স্বাতন্ত্র দিয়ে নজর কাড়ে সবার।

বিস্তারিত খবর

একজন নয়ন বন্ড তৈরি হয় যেভাবে দেখুন......

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০১ ০০:৩৪:১০

প্রখ্যাত ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক ইয়ান ফ্লেমিংয়ের উপন্যাসের কাল্পনিক চরিত্র জেমস বন্ড। তাকে নিয়ে নির্মিত হয়েছে অসংখ্য চলচ্চিত্র ও কমিকস। বাংলাদেশে জেমস বন্ড না থাকলেও একজন নয়ন বন্ড আছেন।
তিনি নিজেই এই উপাধি নিয়েছেন। তাঁর শক্তির উৎস মাদক ও ক্ষমতার

বিস্তারিত খবর

দিনে দুপুরে একজন মানুষকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে কুপিয়ে হত্যা করল, আর চারপাশের সব মানুষ সেই দৃশ্য দেখল, কেউ ছবি তুলে সামাজিক গণমাধ্যমে ছড়িয়ে দিলেন; কিন্তু আক্রান্ত মানুষটিকে বাঁচাতে এগিয়ে এলেন না, এ কেমন সমাজে আমরা বাস করছি?দেশে আইনের শাসন এতটাই ভঙ্গুর যে দুর্বৃত্তরা প্রকাশ্যে চাপাতি দিয়ে মানুষ খুন করতে সাহস পায়। 
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে প্রথম আলোর বরগুনা প্রতিনিধি মোহাম্মদ রফিক জানান, ‘রিফাত শরীফ গতকাল সকাল

বিস্তারিত খবর

শুধু সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের দ্বারা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হতে পারে না। জনগণের ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে এবং আইনের শাসন ও মানবমুক্তির লক্ষ্যে ইন্টারনাল ভিজিল্যান্স বা অবিরাম সতর্কতার কোনো বিকল্প নেই। সেই সতর্ক দৃষ্টি থাকতে হবে বিভিন্ন দিকের। সরকারি দলের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের একাধিপত্য প্রতিরোধ করতে বিভিন্ন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ও সংবিধিবদ্ধ রাষ্ট্রীয় সংস্থা কাজ করে। প্রজাতন্ত্রের সৎ ও দক্ষ কর্মকর্তাদের নিরপেক্ষ ভূমিকাও অপরিহার্য। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানেরা শপথ গ্রহণের মাধ্যমে নির্দিষ্ট মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেন,

বিস্তারিত খবর

কালোটাকার ওপর আলো ফেলা সহজ নয়

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-১৮ ১৫:১৯:১৮

কালোটাকা সাদা করা নিয়ে বেশ জোরালো বিতর্ক হচ্ছে এখন। ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে অর্থমন্ত্রী ব্যবসা, শিল্প ও আবাসন খাতে বিনিয়োগের মাধ্যমে বেশ খানিকটা উদারভাবে কালোটাকা সাদা করার কিংবা অপ্রদর্শিত আয় ঘোষণা করার সুযোগ দেওয়ায় এই বিতর্ক। এত দিন ফ্ল্যাট কিনে আয়তন ও স্থানভেদে নির্ধারিত হারে কর দিয়ে কালোটাকা সাদা করার সুযোগ ছিল। এখন এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে জমি। পাশাপাশি ১০ শতাংশ হারে কর দিয়ে আগামী পাঁচ বছর পর্যন্ত দেশে নির্মীয়মাণ বিভিন্ন অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাইটেক পার্কে কালোটাকা বিনিয়োগ করলে তা বিনা প্রশ্নে গ্রহণ করার আইনি সুযোগ দেওয়া হয়েছে নতুন বাজেটে।

বিস্তারিত খবর

বিলীন হয়ে যাওয়া বাংলাদেশী পয়সার গল্প..........

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-১৫ ২৩:৩৮:০৭

অচল পয়সার মতোই মূল্যহীন হয়ে পড়েছে সচল ধাতব মুদ্রাগুলো।
    আমাদের ছোটবেলায় ভাংতি

বিস্তারিত খবর

 কৃষকের সন্তানের কোনো শৈশব নেই—সরদার ফজলুল করিমের উক্তিটি আমার একান্ত আপন মনে হয়। তিনি জন্মেছিলেন এক কৃষকের ঘরে; যে কৃষক লাঙল নিয়ে খেতে যান আর পেছনে হাল ধরে তাঁর ছেলে। ১৯২৫ সালের ১ মে বরিশালের আটপাড়া গ্রামে কৃষকের ঘরে সরদার ফজলুল করিমের জন্ম। কিন্তু তিনি নিজের অধ্যবসায় ও প্রতিভাবলে হয়েছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। তিনি শুধু শিক্ষক ছিলেন না, নিজেকে আজীবন নিয়োজিত করেছিলেন জ্ঞানসাধনায়।

বিস্তারিত খবর

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল গত বৃহস্পতিবার যে বাজেটটি উপস্থাপন করেছেন, সেটি বলতে গেলে সদ্য সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বাজেটেরই ধারাবাহিকতা, কিন্তু এবারের বাজেট বক্তৃতাটি বেশি সংক্ষিপ্ত ও প্রযুক্তিনির্ভর করতে গিয়ে মুস্তফা কামাল ও তাঁর মন্ত্রণালয়ের টিম খুব মুনশিয়ানার পরিচয় দিতে পারেনি। আমরা যারা বাজেট বক্তৃতা থেকে

বিস্তারিত খবর

যেভাবে এলো বাঙালির বংশ পদবী!

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-০৯ ২৩:০২:৪৩

                      যেভাবে এলো বাঙালির বংশ পদবী !  
বাঙালির বংশ পদবীর ইতিহাস খুব বেশি প্রাচীন নয়। মধ্যযুগে সামন্তবাদী সমাজ ব্যবস্থার ফলে পরবর্তীতে বৃটিশ আমলে চিরস্থায়ী বন্দোবস্তের সমান্তরালে বাঙালির পদবীর বিকাশ ঘটেছে বলে মনে করা হয়। 
অধিকাংশ ব্যক্তি নামের শেষে একটি পদবী নামক পুচ্ছ যুক্ত হয়ে আছে। যেমন উপাধি,

বিস্তারিত খবর

আমরা কি জাতি হিসাবে এতই মূর্খ যে ঐতিহ্য সংরক্ষনের কথা বললে প্রশ্ন জাগে মনে, ‘আমাদের আসলে কিসের প্রয়োজন? ঐহিত্য সংরক্ষণ? না সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য হাসপাতাল?’ আমাদের কি এই বুঝ নেই যে, মা এবং স্ত্রীর প্রয়োজন ক্ষেত্র বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ স্ব স্ব জায়গায়? আমাদের জীবনে মা যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনি গুরুত¦পূর্ণ স্ত্রীও। এখানে কাউকে উপেক্ষার সুযোগ নেই। তেমনি হাসপাতাল এবং ঐতিহ্য দুটাই স্ব স্ব ক্ষেত্রে আমাদের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ। তাই দুটাকেই রক্ষা করতে হবে জাতীয় প্রয়োজনে। একটাকে আরেকটার মোকাবেলায় দাঁড় করিয়ে মানুষের আবেগকে ব্লাকমেইল করা যাবে না। যারা এমন মূর্খ প্রশ্ন করে আমাদের আবেগকে ব্লাকমেইল করতে চাচ্ছেন তাদের জ্ঞানের অবস্থা

বিস্তারিত খবর

১৫ আগস্ট সংঘটিত করতে যেসব ব্যক্তি ও গোষ্ঠী গোপনে যুক্ত হতে থাকে, তারা এসব কিছু হিসাব-নিকাশ করেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে পারে এমন সব কিলারদের রিক্রুট করা হয়, বঙ্গবন্ধু পরিবারের ছোট সদস্য রাসেলকে হত্যার মাধ্যমে তাদের পশু মনোবৃত্তির পরিচয়ই শুধু দেয়নি, ভবিষ্যতে যাতে বঙ্গবন্ধু পরিবার থেকে কেউ বাংলাদেশের হাল ধরতে না পারে সেটির প্রমাণ তারা রাখে। একইভাবে বঙ্গবন্ধুর নিকটাত্মীয় স্বজনদের সেই রাতে হত্যা করা হয়।
১৯৭৫-এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু, তার পরিবার এবং নিকটাত্মীয়দের ট্যাঙ্ক নামিয়ে হত্যাকারীরা তাদের ব্যক্তিগত শত্রুতা

বিস্তারিত খবর

আমরা জানতে চাই

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-১০ ১৭:০২:১৫

সংবাদ মাধ্যমে সেদিন আলোকচিত্র শিল্পী শহিদুল আলমের একটি ছবি ছাপা হয়েছে। ছবিতে দেখা যাচ্ছে অনেক পুলিশ মিলে শহিদুল আলমকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাচ্ছে। তার চেহারা বিপর্যস্ত এবং খালি পা। ছবিটি দেখে আমার বুকটা ধক করে উঠেছে।

বিস্তারিত খবর

‘কোমলমতি’ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন এবং আন্দোলন-কেন্দ্রিক নৈরাজ্য ও সহিংসতা থেকে আমরা কি কোনো শিক্ষা নিয়েছি? ঢাকার রাস্তায় কি এখন আগের তুলনায় অধিক শৃঙ্খলা নজরে পড়ে? এত বড় আন্দোলন এবং একে উপজীব্য করে সৃষ্ট নৈরাজ্যের পরে কিছু পরিবর্তন আমরা আশা করতেই পারি। মানুষ হিসেবে নিশ্চয় বিশ্বে সবচেয়ে নিম্নমানের নই।

বিস্তারিত খবর

তুমিই বাংলাদেশ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-০৬ ১৯:১৮:৫১

একদুই সহপাঠীর অপঘাতে মৃত্যুর প্রতিবাদে স্কুলের শিশু কিশোররা রাস্তায় নেমেছে। রাস্তায় তারা শুধু শোক প্রকাশ করে থেমে থাকেনি- এরকম শোক যাতে ভবিষ্যতে কাউকে করতে না হয়, তার জন্য ব্যবস্থা চায় তারা। তারা নিরাপদ সড়ক চায়। সড়ক ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে তারা প্রশাসনের প্রতি অনাস্থা প্রকাশ করেছে শুধু তাই নয়, তারা নিজেরা এই ব্যবস্থাপনায় নেমে গিয়ে দেখাতে চেয়েছে যে, আইনের প্রয়োগের অভাবেই মূলত সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। তারা বাংলাদেশের মূল রোগটাকে সবার সামনে নিয়ে এসেছে। তারা আইনের প্রয়োগ চায়। যে প্রয়োগের নমুনা দেখানোর জন্য তারা গাড়ি চালকের লাইসেন্সের পেছনে

বিস্তারিত খবর

ওদের দেশ গড়তে দিন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-০৫ ১১:৫৮:৩১

দুই বছর আগেই পড়াশোনা শেষ। হবিগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল পড়েছি। আমি আবার উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ীও। চার বছর ধরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে কাজ করছি। পাঠশালা সাউথ এশিয়ান মিডিয়া ইনস্টিটিউট থেকে আলোকচিত্র নিয়ে পড়ার পর আলোকচিত্রী হিসেবে কাজও করেছি। পাঠশালার একজন অ্যালামনাই আমি। মাঝে দুই বছর ফটোগ্রাফি করিনি।
কয়েক দিন ধরে

বিস্তারিত খবর

বাস্তবতাকে মেনে নিয়ে সমাধান খুঁজতে হবে

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-০৪ ১৭:৪৮:১৭

সম্প্রতি ঢাকা শহরে বেপরোয়া গাড়ি চালানোর ফলে দুই শিক্ষার্থীর করুণ মৃত্যুতে সহপাঠী শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ ও ব্যথিত হবে, এটাই স্বাভাবিক। আর যাতে কারো এমন করুণ মৃত্যু না হয়, সে জন্যই নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছে। সড়ক দুর্ঘটনার কারণে অনেক সম্ভাবনাময় ব্যক্তি ও শিক্ষার্থীকে আমরা অকালে হারাচ্ছি। একমাত্র উপার্জনশীল ব্যক্তিকে হারিয়ে অসংখ্য পরিবার বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছে, অসংখ্য মানুষ সারা জীবনের জন্য পঙ্গুত্ব বরণ  করছে, অনেকেই মানবেতর জীবন যাপন করতে বাধ্য হচ্ছে। 
শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলন

বিস্তারিত খবর

সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে সিলেটবাসী যেমন উদ্বিগ্ন, তেমনি ইংল্যান্ড বসবাসকারি সিলেটিরাও। বিভিন্ন দলের প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারের জন্য ইতোমধ্যে কেউ কেউ ইংল্যান্ড থেকে দেশেও গিয়েছেন। বিভিন্নসূত্রে থেকে জানা যায়, জামায়াত তাদের প্রার্থীর পক্ষে বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে চাঁদা উঠিয়ে প্রচুর টাকা পাঠিয়েছে। বৃটেনে অবস্থানরত অনেক জামায়াতি বাংলাদেশে প্রচার কাজের জন্য গিয়েছেন। আওয়ামীলীগেরও অনেক গিয়েছেন। রাজনীতিতে বিএনপির জন্য খুব করুণা হয়। কারণ, এই দলের নেতৃত্বে প্রতিনিধীত্বশীল মানুষের খুবই অভাব। এখানে নেতৃত্বে অনেক মানুষ এমনও আছে যে, দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ দখল করেও কাজ করছে অন্যের জন্য।

বিস্তারিত খবর

আমাদের ক্ষমতা আমাদের অধিকার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২২ ১৩:২৫:১৫

কিছুদিন আগে আমার সঙ্গে দুজন ছাত্রী দেখা করতে এসেছে। রাগে দুঃখে ক্ষোভে তাদের হাউমাউ করে কাঁদার মতো অবস্থা কিন্তু বড় হয়ে গেছে বলে সেটি করতে পারছে না। তারা দুজনই খুব ভালো ছাত্রী, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভালো ছাত্রছাত্রীদের নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করার একটা স্বপ্ন থাকে।তবে শিক্ষকতার বিষয়ে আবেদন করার জন্য একটা নির্দিষ্ট গ্রেড থাকতে হয়। সেই গ্রেড থেকে কম গ্রেড হলে আবেদনই করা যায় না। ছাত্রী দুজন আমাকে জানাল তারা যেন কোনোভাবেই এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার জন্য আবেদন করতে না পারে সেই জন্য তাদের একটি কোর্সে খুব

বিস্তারিত খবর

আমাদের গণিত অলিম্পিয়াড

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২১ ১৪:৩১:১৪

যদি কাউকে জিজ্ঞেস করা হয় যে, দু’টি সংখ্যা যোগ করলে হয় দশ, গুণ করলে হয় পঁচিশ সংখ্যা দুটি কত? যে একটুখানি যোগ-বিয়োগ-গুণ-ভাগ করতে পারে সেই এক মিনিটের ভেতর সংখ্যা দু’টি বের করে ফেলতে পারবে। এখন আমি যদি জিজ্ঞেস করি দু’টি সংখ্যা যোগ করলে হয় দশ কিন্তু গুণ করলে হয় একশ’ পঁচিশ সেই সংখ্যা দু’টি কত? আমার ধারণা তাহলে অনেকেই মাথা চুলকে বলবে এ রকম দু’টি সংখ্যা থাকা সম্ভব নয়। যারা একটুখানি অ্যালজেবরা শিখেছে ছোটখাটো সমীকরণ সমাধান করতে পারে তারা কিন্তু কাগজ-কলম নিয়ে সংখ্যা দু’টি বের করে ফেলতে পারবে। শুধু তাই নয়, হয়ত অবাক বিস্ময়ে সম্পূর্ণ নতুন ধরনের এই সংখ্যা দু’টির দিকে তাকিয়ে থাকবে।

বিস্তারিত খবর