আজ শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ খবর

সর্বাধিক পঠিত

মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি বাহিনী ও তাদের সহযোগীদের হাতে নির্যাতিত সিলেটের ৬ বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি লাভ করেছেন। মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাওয়া সিলেটের ৬ বীরাঙ্গনা হলেন- কোকিলা বেগম, রেজিয়া বেগম, মায়া বিবি, জয়গুণ নেছা, ললিতা নমসুদ্র, শহর বানু মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলার মিলে আরো ৪০ জন বীরাঙ্গনাকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি গেজেট সম্প্রতি জারি করেছে সরকার। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) ৬২তম সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বীরাঙ্গনারা এ স্বীকৃতি পান। এ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাওয়া বীরাঙ্গনার সংখ্যা ৩২২। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলার বীরাঙ্গনাদের মধ্যে রয়েছেন, টাঙ্গাইলের

বিস্তারিত খবর

মুুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দেশের সকল থানা থেকে রাজাকারের তালিকা সংগ্রহ করা হচ্ছে। শিগগিরই সম্পূর্ণ অবিকৃত অবস্থায় সে তালিকা সরকার প্রকাশ করবে।শুক্রবার পাবনার আটঘরিয়ায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা জানান।
এ সময় মন্ত্রী বলেন, বিচারিক প্রক্রিয়ায় আদালতের মাধ্যমে যে সব যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যুদন্ড কার্যকর হয়েছে তারা দেশের প্রচলিত আইনেই অপরাধী প্রমাণিত

বিস্তারিত খবর

 মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, এ পর্যন্ত ৩ হাজার ১০৭ জন ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল করা হয়েছে। আজ শনিবার সংসদে সরকারি দলের নূরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।
তিনি আরো বলেন, এছাড়া গত ১০ বছরে বাদ পড়া মুক্তিযোদ্ধা ক্যাটাগরি অনুযায়ী অর্থাৎ বেসামরিক গেজেট, নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা), মুজিবনগর সরকারের কর্মচারী, চিকিৎসাসেবা

বিস্তারিত খবর

৫৪’র নির্বাচনে জয়ের পরও আওয়ামী লীগসহ যুক্তফ্রন্টকে বেশি দিন ক্ষমতায় থাকতে দেয়া হয়নি। ১৯৫৮ সালে ক্ষমতা দখল করে একনায়ক আইয়ুব খান কণ্ঠ রোধের চরম পর্যায়ে নিয়ে যায়। তারপরও ৬২’র শিক্ষা আন্দোলনের মাধ্যমে ছাত্ররা আইয়ুববিরোধী আন্দোলনে সারা দেশের মানুষকে যুক্ত করে, যা পরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে স্বাধিকার আন্দোলনে।আওয়ামী লীগসহ যুক্তফ্রন্টকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিয়ে সামরিক শাসন জারির পাশাপাশি শিক্ষাব্যবস্থাকে সংকুচিত করতে ১৯৫৯ সালের ২৬ আগস্ট শরীফ কমিশন গঠন করে জান্তা সরকার।১৯৬১ সালের একুশে ফেব্রুয়ারিতে বিভিন্ন

বিস্তারিত খবর

আজ লক্ষ্মীপুর হানাদার মুক্ত দিবস

 প্রকাশিত: ২০১৮-১২-০৪ ১৫:০২:১১

আজ ৪ ডিসেম্বর লক্ষ্মীপুর হানাদার মুক্ত দিবস। এর আগে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পুরো সময় জুড়ে নৃশংস হত্যা, লুট, অগ্নিসংযোগ ও ধর্ষণের ঘটনায় ক্ষত-বিক্ষত ছিল লক্ষ্মীপুর। পাক-হানাদার বাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসর রাজাকার-আলবদরই এখানে নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালায়। অবশেষে ১৯৭১ সালের এই দিনে বীর মুক্তিযোদ্ধারা সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য করে। তাদের হাত থেকে হত্যা, লুট, আর পাশবিক নির্যাতনের থেকে মুক্ত করা হয় জেলার হাজার হাজার মানুষকে । লক্ষ্মীপুরকে হানাদার মুক্ত করতে মুক্তিযোদ্ধারা দীর্ঘ ৯ মাস জেলার বিভিন্ন স্থানে পাক হানাদার বাহিনীর সাথে

বিস্তারিত খবর

মুক্তিযুদ্ধে ময়মনসিংহ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-১৮ ১৪:৩৩:৩১

মহান ভাষা আন্দোলন, ঐতিহাসিক ৬ ও ১১ দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ এর গণ অভ্যুত্থানে উজ্জীবিত ১৯৭০ এর নির্বাচনে বাঙ্গালী জাতি অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক স্বাধীনতা প্রাপ্তির আশায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে বিপুল ভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে মনোনীত করার পর থেকেই পাকিস্তানী শাসকগোষ্ঠী নানা অজুহাতে ক্ষমতা হস্তান্তর বিলম্বিত করায় প্রতিটি বাঙ্গালী তাদের স্বাধীকার আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ হতে থাকে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের বিভিন্ন প্রকাশ্য ভাষণ ও গোপন নির্দেশের মাধ্যমে গোটা জাতি বিভিন্ন আঙ্গিকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে থাকে। মহান নেতার নির্দেশে জয় বাংলা

বিস্তারিত খবর

মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতির জীবনে এক অবিস্মরণীয় ঘটনা। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের পর আমরা অর্জন করি লাল সবুজের পতাকা, স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষ প্রাণ দিয়েছেন, সম্ভ্রম হারিয়েছেন ২ লাখ মা বোন। যুদ্ধে পুরুষের পাশাপাশি সিলেট অঞ্চলের নারীরাও অংশ নিয়েছেন। নানাভাবে তাদের অংশগ্রহণ মুক্তিযুদ্ধকে করেছিল বেগবান। 

নারীদের কেউ অস্ত্র হাতে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন শত্রুর ওপর, আবার কেউ কেউ পালন করেছিলেন সেদিন সংগঠকের ভূমিকা। পাক হায়েনাদের লালসার শিকার হয়েছেন সিলেটের জকিগঞ্জের এশনু বেগমসহ অসংখ্য নারী। সেই সঙ্গে

বিস্তারিত খবর

‘মুক্তিযুদ্ধে সুনামগঞ্জ’

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২২ ১৬:২২:৩৭

১৯৪৭ সনে দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে ভারতবর্ষ বিভক্ত হয়েছিল অবৈজ্ঞানিক দ্বি-জাতি তত্ত্ব পরবর্তীতে অসার প্রমাণিত হয়। ফলশ্রুতিতে উন্মেষ ঘটে বাঙ্গালী জাতীয়তাবাদের। ১৯৭১ সনে সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে বাংলাদেশের জন্ম হয়। পৃথিবীর মানচিত্রে প্রতিষ্ঠিত হয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। 

বিস্তারিত খবর

৩৮ বীরাঙ্গনাকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৯ ১৬:৪৩:৩৯

একাত্তরে পাকিস্তানি বাহিনী ও রাজাকারদের হাতে নির্যাতিত আরও ৩৮ জন বীরাঙ্গনার নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার।

জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের ৫৪তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এদের মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়ে সম্প্রতি গেজেট জারি করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। 

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক আগেই জানিয়েছেন, ৪০০ থেকে ৫০০ জন বীরাঙ্গনাদের তালিকা নিয়ে কাজ করছেন তারা, পর্যায়ক্রমে সবাইকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেওয়া হবে।

বিস্তারিত খবর